প্রশাসনের চাকরি ছেড়ে প্রাথমিক শিক্ষক হিসেবে যোগ দিলেন জয়েন্ট বিডিও

এতদিন প্রশাসনিক দায়িত্ব সামলেছেন ।এবার প্রশাসনের চাকরি ছেড়ে প্রাথমিক শিক্ষক হিসেবে যোগ দিলেন মালদহের বামনগোলার জয়েন্ট বিডিও (জেলাশাসক) আশিস নায়েক।রীতিমতো শোরগোল পড়ে গিয়েছে তাঁর এমন ব্যতিক্রমী সিদ্ধান্তে।

অনেকেই স্কুলের চাকরি ছেড়ে সরকারি আধিকারিক হন । কিন্তু বামুনগোলার জয়েন্ট বিডিও (জেলাশাসক) কেন উল্টো পথে হাঁটলেন? আশিস নায়েকের সংক্ষিপ্ত জবাব, ‘ব্যক্তিগত কারণেই পদত্যাগ করেছি, বিতর্কের কিছু নেই’।

মাস ছয়েক আগেই জয়েন্ট বিডিও-র ইস্তফা দিয়েছিলেন আশিস। সম্প্রতি সেই ইস্তফাপত্র গ্রহণ করেছে রাজ্যের পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন দফতর। সে কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে তাঁকে।

একসময়ে কালিয়াচক কলেজের অধ্যাপিকা ছিলেন। সক্রিয় রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার পর চাকরি ছেড়েছেন মালদহের মোথাবাড়ির তৃণমূল বিধায়ক সাবিনা ইয়াসমিন। এখন রাজ্যের সেচ ও উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দফতরের প্রতিমন্ত্রী তিনি।

জয়েন্ট বিডিও-র চাকরি ছেড়ে শিক্ষক হওয়ার সিদ্ধান্তকে কীভাবে দেখছেন? সাবিনা ইয়াসমিনের মতে, ‘প্রত্যেকের নিজস্ব সিদ্ধান্ত থাকে। উনি নিজস্ব দৃষ্টিভঙ্গি থেকে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন’।

সঙ্গে যোগ করলেন, ‘শিক্ষকতা সবচেয়ে বেশি সম্মানের কাজ। পরবর্তী প্রজন্মের শিক্ষক যদি না থাকে, তাহলে জয়েন্ট বিডিও বা জেলাশাসক হওয়া যাবে না’।

প্রশাসন সূত্রের খবর, জয়েন্ট বিডিও থাকাকালীন সুনামের সঙ্গে নিজের দায়িত্ব পালন করেছেন আশিস নায়েক। তাঁর বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ ছিল না।

সূত্রঃজি নিউজ

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!

Check Also

শিক্ষামন্ত্রী দিপু মণি

করোনার সংক্রমণ শিশুদের মধ্যে বেড়ে যাওয়ায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সিদ্ধান্ত

হঠাৎ করেই শিশুদের মধ্যে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার বলে …

জাহিদ মালিক

সব অফিস অর্ধেক উপস্থিতি নিয়ে চলবে,বাধ্যতামূলক ৫টি নির্দেশনা জারি

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ দ্রুত বাড়তে থাকায় আগামী দুই সপ্তাহ সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে …

আপনার মতামত জানান