৫ম শ্রেণিতে ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পেয়েছিল পরীমণি,নীতি-নৈতিকতাও ভালো ছিল

পরীমণি খুব ছোট বেলায় মাকে হারিয়ে বড় হয়েছেন নানার বাড়িতে।পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়া উপজেলার সিংহখালী গ্রামের নানা বাড়িতেই তার জন্ম ও বেড়ে ওঠা ।

এই সিংহখালী গ্রামকেই পরীমণির নিজের গ্রাম ধরে নেওয়া হয়। তার দাদার বাড়ি নড়াইল জেলার লোহাগড়া উপজেলায় হলেও সেখানে কখনোই থাকেননি পরীমণি।

এলাকাবাসী অনেকে তাকে পরীমণি নয় বরং স্মৃতি নামেই চেনেন।গ্রামে এই নায়িকার সম্পর্কে কোনো নেতিবাচক তথ্য নেই। বরং তুখোড় মেধাবী হওয়ায় ‘পরিমণিকে নিয়ে এখনো গর্ববোধ করেন তার প্রাইমারি স্কুল-কলেজের শিক্ষকরা।

১৯৯৫-৯৬ সালের দিকের কথা। তখন স্মৃতির(আজকের পরিমণির) বয়স ছিল মাত্র তিন বছর।সে দক্ষিণ সিংহখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছিল।

পরিমণির বাবা মনিরুলের তখন ঢাকায় পোস্টিং ছিল,সেখানে একটি বাসায় আগুনে পুড়ে গুরুতর দগ্ধ হন তার মা সালমা। ঢাকায় কিছুদিন চিকিৎসার পর তাকে বাবা শামসুল হক গাজীর কাছে রেখে যান মনিরুল। এর দুই মাস পর মারা যান সালমা।

এরপর থেকে স্মৃতিকে তার নানা-নানি ও খালারা লালন-পালন করেন। স্মৃতির নানি মরহুমা ফাতিমা বেগম দক্ষিণ সিংহখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাকালীন প্রধান শিক্ষিকা ছিলেন। তিনি মারা যাওয়ার পর  প্রধান শিক্ষক হন বেলায়েত হোসেন।

পরীমণি সর্ম্পকে দক্ষিণ সিংহখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এই প্রধান শিক্ষক বলেন, ছোট থেকে স্মৃতি(পরিমণি) ভালো ছাত্রী ছিল, তার নীতি-নৈতিকতাও ভালো ছিল।

৫ম শ্রেণিতে স্কুল থেকে একমাত্র সে ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পায়।  দেখতে খুব সুন্দর ছিল স্মৃতি। মা হারানো এতিম শিশুটিকে এলাকার সবাই অনেক আদর করতেন।

আরো পড়ুন
টাকা দিয়ে শিক্ষকদের মর্যাদা নির্ণয় করা যায়না কথাটি শিক্ষকদের ঠকানোর একটি কৌশল
ফল দেখে মনে হচ্ছে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি নয়, বদলি বিজ্ঞপ্তি হয়েছে
২০২১সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের(ইংরেজী ভার্সন) অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ
আলিম পরীক্ষা-২০২১ এর ফরম পূরনের (eFF) বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!

Check Also

দিপু মনি

এ মুহূর্তে স্কুল-কলেজে ক্লাসের সংখ্যা বাড়ানোর সুযোগ নেই-শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে এবং সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করেই শিক্ষার্থীদের শ্রেণী কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে …

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর

৩০ অক্টোবর থেকে শিক্ষার্থীদের কৃমিনাশক খাওয়ানো হবে

২৩ থেকে ২৯ অক্টোবর শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যপরীক্ষা এবং ৩০ অক্টোবর থেকে ৫ নভেম্বর কৃমি নিয়ন্ত্রণ সপ্তাহ …

আপনার মতামত জানান